সহবাসে সক্ষমতা অর্জন করার বিভিন্ন আমল, পদ্ধতি ও তদবির

সহবাসে সক্ষমতা অর্জন করার বিভিন্ন আমল, পদ্ধতি ও তদবির

অনুবাদ ও সম্পাদনায়

হযরত মাওলানা ক্বারী মো: নজরুল ইসলাম সাহেব, ভাদেশ্বরী। (এমএম, এমএ)

সহবাসে সক্ষমতা অর্জন করতে বিভিন্ন রকমের এলাজ রয়েছে।

৩টি কারণে যৌবন শক্তি হারিয়ে যায় বা দুর্বল হয়।

১. পুরুষ অতিরিক্ত উক খাইলে,

২. ঘুম কম হইলে ও

৩ অতিরিক্ত টেনশন বা চিন্তা থাকলে।

দ্রব্যগুণন

১. পুরুষাঙ্গে নিয়মিত মধু মালিশ করিলে পুরুষাঙ্গ লোহার মত মজবুত হয়।

২. জয়তুন তেল যৌনাঙ্গে মালিশ করিলে দীর্ঘক্ষণ স্ত্রী সঙ্গম করা যায়।

৩. নিয়মিত মধু পান করিলে ও শুট চুর্ণ করে মধুর সাথে মিশিয়ে যৌনাঙ্গে মালিশ করিলে হারানো যৌবন ফিরে পাওয়া যায়।

৪. নিয়মিত মধু ও খেজুর খাইলে যৌন শক্তি বৃদ্ধি পায়।

৫. মর্দামী শক্তি বৃদ্ধি ও পূর্ণবহাল রাখার জন্য রাতে শয়নের পূর্বে এককোয়া বিশিষ্ট একটি পিঁয়াজ ও ১০-১৫টি কালো জিরার সাথে চিবাইয়া খাইলে ৮০ বছর পর্যন্ত মর্দামী শক্তি বহাল থাকে।

৬. চিনি দিয়ে হালকা গরম দুধ খাইলে সহবাসে অধিক সময় পাওয়া যায়।

৭. পদ্ম ফুলের গেঁড় মধুর সাথে পেষণ করে নাভির উপর প্রলেপ দিলে বীর্যস্থলন হয় না।

৮. মাঘ অথবা ভাদ্র মাসের কৃষ্ণপক্ষের চতুর্দশীতে কটিহারির মূল তুলে আনবেন। তারপর আবশ্যক মতো ওটা কোমরে বেঁধে সহবাস করলে বহুক্ষন পর্যন্ত বীর্যস্থালন হবে না।

৯. ফিটকিরির ডেলা কোমরে বেঁধে সহবাস করলে অধিকক্ষন পর্যন্ত বীর্যস্থম্ভন হয়।

১০. সাদা আমগাছের মূল এনে কোমরে বেঁধে সহবাস করলে বহুক্ষন পর্যন্ত বীর্যস্থলন হবে না।

 আদি ও আসল চিকিৎসা সম্পর্কে জানতে ভিজিট করুন

১১. খরগোশের চামড়া ছিদ্র করে কোমরে বেঁধে সহবাস করলে দীর্ঘ সময় বীর্যস্থলন হবে না।

১২. রবিবার দিন ঘোড়া অথবা খচ্চরের ল্যাজের লোম নিয়ে আসবেন। হলদে কড়ি ছিদ্র করে তাতে ঐ লোম গেঁখে দিয়ে নিজের ডান হাতে ধারণ করে সহবাসে প্রবৃত্ত হবে। যতক্ষন না সেটা খুলে রাখা হবে ততক্ষন বীর্যস্থলন হবে না।

১৩. অপরাজিতা গাছের মূল এবং শিখা গাছের মূল কাপড়ের টুকরোর মধ্যে জড়িয়ে হাতে বেঁধে সহবাস করলে বহুক্ষন পর্যন্ত বীর্যস্থলন হবে না।

১৪. শুয়ারের ডান দিকের দাঁত কোমরে বেঁধে সহবাস করলে যতক্ষন পর্যন্ত খোলা না হবে ততক্ষন বীর্যস্থলন হবে না।

১৫. শ্মশানে উৎপন্ন হওয়া নীলবৃক্ষের মূল নিয়ে কোমরে বেঁধে সহবাস করলে বহুক্ষন বীর্যস্থম্ভন হয়।

১৬. সোমবার দিন ভোঙ্গাকে নিমন্ত্রন করে আসবেন। এবং মঙ্গলবার তার মূল উপড়ে নিয়ে আসবেন। তারপর তা কোমরে বেঁধে সহবাস করলে বহুক্ষন পর্যন্ত বীর্যস্থম্ভন হবে।

১৭. তুলসীর বীজ চুর্ণ করে পানের মধ্যে রেখে খাবেন। তারপর সহবাস করবেন তাহলে সাত ঘন্টা পর্যন্ত বীর্যস্থলিত হবে না।

১৮. পুষ্য নক্ষত্রে উলঙ্গ হয়ে ইন্দ্রবারুনী বুটির মুল তুলে এনে তার সঙ্গে শুঁঠ, কালো মরিচ, পীপর পেষন করে মেশাবেন। তারপর তার সঙ্গে গরুর দুধ মিশিয়ে বটিকা তৈরি করে ছায়াতে শ্তষ্ক করবেন। এই বটিকা মুখে রেখে সহবাস করলে যতক্ষন বটিকা মুখে থাকবে ততক্ষন বীর্যস্থলন হবে না।

১৯. কালো কাকের জিহবা ছায়ায় শুকাইয়া উহা কোমরে বাধিয়া স্ত্রী সহবাস করিলে উহা না খোলা পর্যন্ত যত সময় ইচ্ছা সহবাস করিতে সক্ষম হইবে।

২০. ধুতরার দানা, চকুন্দা বিচি, বাবচি ও ভেরেন্ডার দানার শাঁষ ৫ গ্রাম করিয়া নিয়া ছাগলের দুধের সহিত পিষিয়া একগ্রাম আন্দাজ বড়ি বানাইবে। তারপর স্ত্রী সহবাসের ২ ঘন্টা পূর্বে গো-দুগ্ধসহ একটি বড়ি সেবন করিবে। যে পর্যন্ত কোন প্রকার টক না খাইবে ততক্ষন পর্যন্ত বীর্য নির্গত হইবে না।

২১. যৌন শক্তি বৃদ্ধি করিতে হলে চুড়ুই পাখির মাংস ভুনা করে খাবে। এবং তার মগজ পুংলিঙ্গে মালিশ করবে। এতে অসম্ভব রকমের যৌন শক্তি বৃদ্ধি পাবে। প্রতি রাতে ২/৩ বার করে সহবাস করলেও শরীর বা লিঙ্গ দুর্বল হবে না

২২. যে কোন কারণে পুরুষত্বহীনতা হলে, এগারটি বরই পাতা নিয়ে পাথর দ্বারা পিশে তার সাথে কিছু পানি মিলিয়ে নিবে। তারপর আয়াতুল কুরসী, সূরা ফালাক্ব ও সূরা নাস পাঠ করে উক্ত পানিতে দম করবে। ঐ পানি জিহবা দিয়ে তিনবার চেটে কিছু পান করবে এবং বাকী পানি দ্বারা গোসল করবে। আল্লাহ পাকের রহমতে মর্দামী শক্তি ফিরে পাবে।

২৩. উঠের লোম দ্বারা দড়ি পাকিয়ে নিজের জানুতে বেঁধে নিন। যতক্ষন সেই দড়ি খোলা না হয় ততক্ষন বীর্যস্থলন হবে না।

অনলাইনে কিভাবে ইনকাম করবেন জানতে চাইলে ভিজিট করুন

 

যোগাযোগ

০১৭১৬-৩৮৬৯৫৮

 

What do you think?

0 points
Upvote Downvote

Comments

Leave a Reply

Loading…

0

Comments

0 comments

শিশুদের বিছানায় প্রস্রাব না করার চিকিৎসা

পবিত্র কোরআনের বিষ্ময়কর কিছু তথ্য!